নিজের সফল ক্যারিয়ার গড়বেন কিভাবে?

এই লেখার প্রথমেই আলবার্ট আইনস্টাইন স্যারের একটা বানী দিয়ে শুরু করবো সেটা হলো "তুমি যাই হও আর যায় করোনা কেনো সেটা ভালোভাবে করার চেষ্টা করো সফলতা আসবেই"

বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা । দোষী কারা ?
TikTok banned by US Navy
বিশ্বের প্রথম ১০৮ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা নিয়ে আসছে শাওমি । Xiaomi MI Mix 4 is Coming With 108 MP Camera
এই লেখার প্রথমেই আলবার্ট আইনস্টাইন স্যারের একটা বানী দিয়ে শুরু করবো সেটা হলো “তুমি যাই হও আর যায় করোনা কেনো সেটা ভালোভাবে করার চেষ্টা করো সফলতা আসবেই” কথায় আছে কঠোর পরিশ্রমই সফলতার মুলমন্ত্র। কথাটি সত্য তবে আপনি কোথায় শ্রম টা দিবেন সেটাও ভাবতে হবে। মনে করুন আপনি এ্যান্ড্রয়েড এ্যাপস ডেভেলপমেন্ট শিখবেন কিন্তু আপনার প্রোগ্রামিং ভালো লাগেনা এবং কম্পিউটারের সামনে বসতে ভালো লাগেনা, তাহলে আপনি সফল হতে পারবেন বলে আমি মনে করিনা। আপনি এমন একটি পেশা নির্বাচন করুন যেটা করতে আপনার ভালো লাগে। যে কাজের প্রতি আপনার ভালোবাসা আছে। কাজের প্রতি ভালোবাসা থাকলে আপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়তে সফল হবেন। মনে করুন আপনি ছবি আঁকতে ভালোবাসেন তাহলে কিন্তু আপনি গ্রাফিক ডিজাইনে ক্যারিয়ার গড়ে ফেলতে পারবেন। ধরুন আপনি ১০০ বার ব্যর্থ হয়েছেন, তারপরও কিন্তু আপনার সেই কাজের প্রতি ভালোবাসা আছে। আপনি যদি ১০০ বারেও ব্যর্থ হন তারপর আপনি সেই কাজ করতে পারবেন সুতরাং সফল আপনি হবেনই। আমার এই আর্টিকেলে আমি আপনার সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি আপনি কিভাবে নিজের ক্যারিয়ারে সফল হবেন এবং কিভাবে আপনার প্রতিভা খুজে বের করতে পারবেন।

প্রত্যেক মানুষই প্রতিভাবান, প্রতিভা খুজে বের করাই মুল বিষয়।

জন্ম থেকেই কেউ কোন বিশেষ কোন প্রতিভা নিয়ে জন্মগ্রহন করেনা। আমাদের সমাজ, শিক্ষা এবং পরিবেশই একজন মানুষকে প্রতিভাবান করে তোলে। প্রত্যেক ব্যক্তিই কোন না কোন বিষয়ে প্রতিভার অধিকারী। আপনাকে খুজে বের করতে হবে আপনি কোন কাজে পারদর্শী। ১০ বছর বয়সে বিল-গেটস জানতো না যে সে মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা হবে, বা সে কম্পিউটার এর অপারেটিং সিস্টেম তৈরি করবে। শুধুমাত্র তার কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর প্রতি ভালোবাসা ছিলো বলেই আজ সে সফল। সুতরাং আপনাকেও খুজে বের করতে হবে আপনার কোন কাজের প্রতি ভালোবাসা আছে। যদি মনে করেন আপনার ফেসবুকিং করতে ভালো লাগে তাহলে সেটা ভালোবাসা নয়। মনে রাখতে হবে ফেসবুকিং করা কোন কাজ নয়, টেলিভিশন দেখা কোন কাজ নয়। আপনাকে এমন একটি কাজকে ভালোবাসতে হবে যেখানে আপনি আপনার ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন। যদি আপনি অভিনয় ভালো করতে পারেন সেক্ষেত্রে কিন্তু সেটা একটা পেষা, তবে অভিনেতার অভিনয় দেখে সময় নষ্ট করাটা কোন কাজ নয়, তবে অভিনয় দেখেও অভিনয়ের দক্ষতা বাড়ানো যেতে পারে। যেমন একজন ভালো গ্রাফিক ডিজাইনার বিভিন্ন ডিজাইন দেখে তাদের নিজের ডিজাইনের দক্ষতা বাড়ায়। সুতরাং প্রথমেই আপনাকে খুজে বের করতে হবে আপনার কোন কাজটি করতে ভালো লাগে। যদি আপনি আপনার প্রতিভা অথবা ট্যালেন্ট খুজে পেয়ে যান তাহলে আপনি সফল হতে পারবেন।

সফল হতে হলে তো শুরুটা দরকার

ধরে নিলাম আপনি যে কাজটি করতে ভালোবাসেন সেটা আপনি খুজে বের করে ফেলেছেন। বলা যায় আপনি আপনার প্রতিভা খুজে পেয়েছেন। এখন সময় আপনার প্রতিভাটি মানুষের সামনে নিয়ে আসা। ধরে নিলাম আপনি স্ট্যান্ড আপ কমেডি করতে ভালোবাসেন বা মানুষ হাসাতে ভালোবাসেন। কিন্তু কেউ জানলো না যে আপনি কমেডি করতে ভালোবাসেন, সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনার প্রভিভা আপনার ভিতরেই চাপা পড়ে থাকবে। আপনাকে মানুষের কাছে পৌছাতে হলে অবশ্যই আপনার কাজটি শুরু করতে হবে এবং আপনার কাজগুলো মানুষের সামনে উপস্থাপন করতে হবে। বর্তমানে ইউটিউব, ফেসবুকের মতো সোস্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেও আপনার কাজ গুলো মানুষের সামনে উপস্থাপন করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনি অন্যান্য মানুষের ভালো এবং খারাপ মতামত থেকে নতুন কিছু শিখতে পারবেন।

কাজকে সময় দিন – সময়ের কাজ সময়ে করুন

সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি ,
সারাদিন আমি যেন ভালো হয়ে চলি।
মদনমোহন তর্কালঙ্কারের আমার পন কবিতাটি আমরা সকলেই পড়েছিলাম কোন একসময়। কিন্তু সকালে উঠে আমরা কখনোই কি মনে করি আমাদের সারাটি দিন কিভাবে কাটাবো? আমরা প্রতিদিন ঘুম থেকে ঠিকই উঠি কিন্তু ঘুম থেকে ওঠার সময়টা আর সকাল থাকেনা। আপনি যদি একজন বেকার যুবক হয়ে থাকেন তাহলে আপনার সকাল কিন্তু একটু দেরিতেই হয়। অভ্যাস করুন প্রতিদিন সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার। এবং চিন্তা করে নেওয়ার ” সারাদিন কি কি করবেন”

COMMENTS

WORDPRESS: 0
    DISQUS: